Skip to content

একটি কাল্পনিক Love Story (২য় পর্ব)

নভেম্বর 21, 2008

আবির আর নাঈম কলেজ শেষে বাসায় ফিরছে,
আবির : Ok নাঈম ভাল থাক , আর হে শোন, বিকালে পার্কে আসিছ, কথা আছে। Ok আসবো।

আবির
: দুইটি মানে ,
নাঈম: একটি হচ্ছে ইভার আরেকটি আকাশের চাঁদ।

আবির :
ঠিক আছে দেখা যাবে।

নাঈমের কথায় কথায় ইভার প্রশংসা , নাঈম যখন বলতেছিল, ইভার কথা বলার স্টাইল, ওর চোখ, মায়াবী চেহেরার কথা, একবারে পারফেক্ট একটা বাঙ্গালীর মেয়ের কথা।
আবিরের মনটাতে কে যেন একটু নাড়া দিয়ে যাচ্ছে , নাঈমের কথা শুনে ইভাকে অনেক দেখতে ইচ্ছে করছিল আবিরের।
কিন্তু বললেই তো আর দেখা করা যায়না।

সাইকেলের উপরে বসেই ইভার কথা ভাবছিল আবির, পথেই ইভার আব্বু আশরাফ সাহেবের সাথে দেখা।

আবির: আসসালামু আলাইকুম আংকেল, কেমন আছেন?
আশরাফ সাহেব : ভাল বাবা, তুমি কেমন আছো, পড়াশুনা কেমন চলছে, তোমার আব্বু আম্মু কেমন আছে?
আবির : হ্যা, আংকেল বাসার সবাই ভাল।
আশরাফ সাহেব : আবির তোমার সাথে আমার কিছু কথা ছিল, তোমার আন্টি আর আমার দুই মেয়ে ওরা চার দিন হয়েছে এসেছে , এখন কি করতে হবে এ বিষয়ে আমি তেমন ভাল জানিনা তুমি একটু টাইম নিয়ে আসতে পারবে ।
তোমরা তো অনেক দিন যাবৎ এখানে আছো সব জানো ।
আবির : ঠিক আছে আংকেল দেখি আজ সন্ধ্যায় আসতে পারি কি না।
আশরাফ সাহেব : Ok , এসো তাহলে আমি সন্ধ্যায় বাসায় থাকবো।

বিকালে আবিরের সাথে নাঈমের দেখে পার্কে নাঈম কে আশরাফ সাহেবের কথা বললো , আজ সন্ধ্যায় যে আবির ইভাদের বাসায় যাচ্ছে সেই কথা ও বললো । নাঈম বললো আমি ও কিন্তু যাবো তোর সঙ্গে।
নাঈম আবির কে বললো আজ সন্ধ্যায় তুই দুইটি চাঁদের মুখ দেখবি।

সন্ধ্যার একটু পর পরেই আবির আর নাঈম চললো আশরাফ সাহেবের বাসার দিকে, বাসার নিচে গিয়ে কলিং বেল চাপতেই গেট খুলে দেয়, আশরাফ সাহেব।

সালাম দিয়ে বাসায় ঢুকতেই দেখে কি যে সুন্দর করে সাজানো বাসা, নাঈম আবির কে ফিসফিস করে বলে, দেখেছিস ইভা এসেই কত সুন্দর করে বাসাটা সাজিয়েছে।
দেওয়ালে ভাসছে গ্রাম বাংলায় ছবি, কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকত , ঢাকার বুড়িগঙ্গা নদী, নজর কাড়া কিছু ফুল।

আশরাফ সাহেব : কেমন আছো তোমরা ?
আবির ও নাঈম : ভাল, আপনারা কেমন আছেন?
আশরাফ সাহেব : আমরা ভালই আছি, আবির তোমার কাছে কয়েকটা বিষয় জানার ছিল।
আবির : বলুন আংকেল , কি জানতে চান।
আশরাফ সাহেব : এখন তো তোমার আন্টি আর আমার দুই মেয়ে ইভা ও ঈশা এসেছে , ওদের নিয়ে এখন কোথায় কোথায় কাগজ পত্র জমা দিতে হবে?
আবির : প্রথমে প্রেফেততুরায়, পরে কোসতুরায় গিয়ে সব ডুকুমেন্ট জমা দিলেই হবে তারপর ওরা কিছু মডেল দিবে, ঔগুলো পুরুন করে পো্ষ্টে পাঠালেই হবে।
আশরাফ সাহেব : ঠিক আছে, অনেক বড় উপকার করলে, কাল সকালেই প্রেফেততুরায় যাবো্।
আবির : আংকেল কি যে বলেন না, কি এমন উপকার করলাম এটা তো আমাদের কর্তব্য বলে মনে করি।
আশরাফ সাহেব : একটু বসো একটু ভিতর থেকে আসতেছি।

এই বলে আশরাফ সাহেব ভিতরের রুমে গেল।
নাঈম আবির কে বলছে…

নাঈম : তোকে এখন জামাই আদর করবে আশরাফ আংকেল।
আবির : নাঈম, দেখ ফাজলামি কথা বলা বাদ দে। তুই না বলেছিল , এই বাসায় চাদ দেখবো্। কই চাদ তারা কিছুই তো দেখছিনা। যে জন্য এতো আগ্রহ নিয়ে আসলাম, কই তোর সেই নীল পরী, যার প্রসংশা তোর মুখে মুখে, দেখা না একটু সেই নীল পরীকে।
নাঈম : আবির দেখ দেখ, ঔ তো যাচ্ছে ইভা,
আবির দরজা দিয়ে তাকাতেই ইভা পাশের রুমে ঢুকে গেলো।
আবির : উফফফফফ কেমন যে লাগে, দেখতে পারলাম না ।
নাঈম : শালা এখন থেকে দরজার দিকে তাকিয়ে থাক, আবার যখন রুম থেকে বের হয়ে কিচেনে যাবে তখন দেখিস।
আবিব : ঠিক আছে, আমি তাকিয়েই রইলাম।

একটু পরে ইভা যখন রুম থেকে বের হয়ে কিচেনে যাচ্ছিল, এক পলক তাকাতেই চোখে চোখ পরে আবির ও ইভার।
উপমাহীন এক হাসিতে আবিরের হৃদয়ে একটু মৃদ দোলা দিয়ে গলো ইভা।

আশরাফ সাহেব সাহেব টেবিলে দিয়ে খাবার নিয়ে ডাকলো আবির ও নাঈম কে, এসো কিছু খেয়ে নেই, পরে আর কিছু কথা বলার আছে।
আশরাফ সাহেব,আবির,নাঈম ও আশরাফ সাহেবের ছোট মেয়ে ঈশা।

আশরাফ সাহেব : আমার মেয়েদের কোন স্কুলে ভর্তি করা যার বলতো ?
আবির : ঈশা কে মেডিয়া তে আর আপনার বড় মেয়েকে আমাদের কলেজে ভর্তি করিয়ে দিতে পারেন আর পাশা পাশি ওখানে ভাষা শিখার কোর্স আছে ওটাতেও ভর্তি করে দিতে পারেন। তাহলে ভাষা ও শিখা হবে আর কলেজে ক্লাস ও ঠিক মত করতে পারবে।
আশারাফ সাহেব : ঠিক আছে তাই করবো, তোমরা এখানে ছোট থেকে বড় হয়েছো তোমরাই পড়াশুনার ব্যপারে ভাল যানো তোমরা যেটা বললে আমি তাই করবো দু এক দিনের মধ্যেই আমি তোমাদের কলেজে গিয়ে ইভা কে ভর্তি করিয়ে আসবো।
আবির : কলেজে গেলে আমাকে অথবা নাঈম কে ডাকবেন আমরা স্যারের সাথে কথা বলে ভর্তির ব্যাপার টা বুঝিয়ে বললো ।

এমন সময় ইভা কিচেনে আসে , ফ্রিজ থেকে কি যেন বের করতে। আবার চোখে চোখ মুচকি হাসি দিয়ে পাগল করে দিলো ।
(চলবে…)

Advertisements
One Comment leave one →
  1. tusin ahmed permalink
    মার্চ 13, 2010 11:11 পুর্বাহ্ন

    nice……..onak sondor hoacha……………….tumi to onak valo likta paro………………………]

    plz amar k mail koro tomar satha kotha acha?

    ahmedtusin@yahoo.com

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: